মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ইনফো-সরকার

Key and responsibilities:
Maintaining connectivity using ADSL modem at the upazilla offices
Work for smooth and reliable connectivity through fiber optic at the upazilla offices by maintaining and operation the transmission equipment
Configuration and maintaining any LAN currently in place or created in future at the Upazilla Prishad Office
Maintaining and operating Video Conferencing equipment
Coordinating with BTCL and other offices to ensure uninterrupted connectivity and for trouble shooting and
Other functions as given by the project.

ন্যাশনাল আইসিটি ইনফ্রা-নেটওয়ার্ক ফর বাংলাদেশ গভর্নমেন্ট ফেজ-২ (ইনফো-সরকার)

তথ্য প্রবাহের এই আধুনিক যুগে
উন্নত রাষ্ট্রগুলো যেমন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহারের মাধ্যমে উপকৃত
হচ্ছে তেমনই অনেক উন্নয়নশীল রাষ্ট্র দারিদ্র, মন্থর অর্থনীতি এবং অদক্ষ
শাসনব্যাবস্থা উন্নয়নের কার্যকর হাতিয়ার হিসেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহারের
দিকে মনোযোগী হচ্ছে। বাংলাদেশে
ই-গভর্নেন্স এখন একটি আলোচিত বিষয়। কতিপয় সরকারি কার্যালয় নির্দিষ্ট কিছু
ই-গভর্নমেন্ট প্রকল্পের বিষয়ে উদ্ভাবনী পদক্ষেপ নিয়েছে।

বাংলাদেশ সরকার উন্নত
সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সরকারি সেবাসমূহ উন্নয়নের পাশাপাশি স্বচ্ছতা
নিশ্চিতকরণ এবং জনগণের প্রতি সরকারের দায়বদ্ধতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সক্রিয়ভাবে
ই-গভর্নেন্সকে গ্রহণ করেছে।এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন আইনগত ও কৌশলগত কাঠামো
প্রস্তুত করেছে। এছাড়াও সরকারি কার্যালয়গুলোকে একই নেটয়ার্কের আওতায় এনে তাদের
মধ্যে তথ্যের ব্যাবস্থাপনা, আদানপ্রদান এবং সমন্বয় করার লক্ষ্যে একটি তথ্য
ব্যাবস্থাপনা পদ্ধতির উন্নয়ন করছে। সরকারি তথ্যসমূহের নিরাপত্তার জন্য এই
পরিকাঠামো পর্যাপ্ত ব্যাবস্থা গ্রহণ করবে।

জাতীয়
পর্যায়ে ই-গভর্ননেন্সকে কার্যকরী করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার বৈদেশিক আর্থিক ও
প্রযুক্তিগত সহযোগীতা পাচ্ছে। সরকারের দক্ষতা ও স্বচ্ছতা উন্নয়নের জন্য
ক্রমবর্ধমান চাহিদা বিবেচনা করে “ন্যাশনাল আইসিটি ইনফ্রা-নেটওয়ার্ক ফর বাংলাদেশ
গভর্নমেন্ট ফেজ-২(ইনফো-সরকার)” প্রকল্পের নামে একটি সম্ভাব্যতা সমীক্ষা প্রতিবেদন
প্রস্তুত করা হয়েছে।

“ইনফো-সরকার”
প্রকল্পটি কোরিয়ান এক্সিম ব্যাংক এর আর্থিক সহায়তায় বিসিসি কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন “বাংলাগভনেট”
প্রকল্পের সম্প্রসারিত ধাপ। ইনফো-সরকার প্রকল্পের আওতায় সকল মন্ত্রণালয় বা বিভাগীয়
প্রধান কার্যালয়,  ৬৪ জেলা প্রশাসকের
কার্যালয় এবং ৬৪ উপজেলাতে আইসিটি নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হবে। এই নেটওয়ার্ক পরিচালিত
হবে বিসিসি-তে স্থাপিত “ন্যাশনাল আইসিটি সেন্টার(এনআইসিটিসি)” এর মাধ্যমে।  এনআইসিটিসি-এর অন্তর্ভুক্ত আইসিটি সেন্টারগুলো
হচ্ছে-৬৪টি জেলা আইসিটি সেন্টার, ৭টি বিভাগীয় আইসিটি সেন্টার এবং ৬৪ উপজেলা
কর্মকর্তার অফিসে উপজেলা আইসিটি সেন্টার।

সরকারের
কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় প্রশাসনের মধ্যে তথ্য আদান-প্রদানের সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে
সরকারী কার্যে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ, অধিকতর উন্নত জনসেবা প্রদানের
জন্য প্রশাসনের সর্বস্তরে ই-গভর্নেন্স প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে ধাপ-১ (বাংলাগভনেট)
প্রকল্পের সম্প্রসারণ হিসেবে ধাপ-২ প্রকল্পের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

ইনফো-সরকার
প্রকল্পটি চীন সরকারের প্রাধিকারমূলক সুবিধাপ্রাপ্ত ঋণ দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।

 

প্রকল্প সার সংক্ষেপ

1.    জাতীয় ডাটাসেন্টারের তথ্য ধারণক্ষমতা ৫৪  টেরাবাইট হতে ২৫৪ টেরাবাইটে সম্প্রসারণ করা  হয়েছে।

2.    জাতীয় ডাটাসেন্টার এর ডিজাস্টার রিকোভারী  সেন্টার স্থাপিত হয়েছে। বাংলাদেশ সচিবালয়ের  সাব-ডাটা সেন্টার স্থাপন করা হয়েছে।

3.    বাংলাদেশ সচিবালয় ও বাংলাদেশ কম্পিউটার   কাউন্সিল-এ ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক স্থাপন করা  হয়েছে।

4.    সারাদেশে একযোগে ২৪৯০৭টি ট্যাবলেট পিসি  সরকারি কর্মকর্তাগণের কাছে সরবরাহ করা  হয়েছে, যা একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

5.    বাংলাদেশের সকল জেলা পর্যায়ে গড়ে ৫৫টি করে  এবং উপজেলা পর্যায়ে গড়ে ৩০টি করে মোট  ১৮১৩০ টি সরকারি অফিসকে কানেক্টিভিটির  আওতায় আনা হয়েছে।

6.    বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারাদেশের ১৫টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নেটওয়ার্কিং ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে।

7.    বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলে একটি স্পেশাল ইফেক্ট ল্যাব ও একটি বিশেষায়িত নেটওয়ার্কিং ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে।

8.    গভঃ ক্লাউড প্লাটফর্ম নির্মাণ করা হয়েছে।

9.    সার্বক্ষণিক সরকারি সেবার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে এবং নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে ২টি মোবাইল অ্যাপস তৈরি করা হয়েছে।

10.  ৮০০টি ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদপ্তর, ইউএনও অফিসসহ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্হাপন করা হয়েছে।

11. বিভিন্ন সরকারি অফিসের কর্মকর্তাদের দেশে ও বিদেশে যুগপোযোগী আইসিটি প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

12. ৪৮৭টি উপজেলায় সোলার প্যানেল স্থাপন করা হয়েছে।

13. সারাদেশে ২৫৪টি উপজেলায় কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ কেন্দ্র (এআইসিসি) স্থাপন করা হয়েছে।

14. ২৫ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টেলিমেডিসিন সেবা প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

15.মন্ত্রণালয় ,বিভাগ, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা  ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য ৬১৫টি ইন্টারনেট মডেম প্রদান করা হয়েছে।

16.ই-কৃষি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে খামারবাড়িতে WAN-LAN নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হয়েছে।